নিষেধাজ্ঞার হুমকিতে মিরপুর শেরেবাংলা

বোলারদের জন্য কিছু না থাকায় চট্টগ্রাম টেস্টের উইকেট ‘আদর্শ নয়’ বলে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট দিয়েছিল আইসিসি। এবার মিরপুরের শেরেবাংলা স্টেডিয়াম ডিমেরিট পয়েন্ট পেল ঠিক বিপরীত কারণে। ব্যাটসম্যানদের জন্য ‘বধ্যভূমি’ হওয়ায় ম্যাচ রেফারি ডেভিড বুন মিরপুরের উইকেটও ‘আদর্শ নয়’ বলেছেন। 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মিরপুরে স্পিন-সহায়ক উইকেটে খেলেছে বাংলাদেশ। প্রথম দিন থেকেই বল ঘুরেছে। বোলাররা বারবার আনন্দে মেতে উঠলেও ব্যাটসম্যানদের রান তুলতে নাভিশ্বাস উঠে গেছে। মিরপুরে উইকেট নিয়ে বুন আইসিসিকে দেওয়া তাঁর প্রতিবেদনে জানিয়েছেন, প্রথম দিন থেকে বল বাঁক খেতে পারে পিচে এমন প্রমাণ পাওয়া গেছে। ম্যাচজুড়েই এ কারণে আচমকা বাউন্স দেখা গেছে, বিষম টার্ন ছিল। এই পিচে যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে সেটা বোলারদের মধ্যেই, স্কিল প্রদর্শনীতে ব্যাটসম্যানের যথেষ্ট সুযোগ দেওয়া হয়নি।
আড়াই দিনে শেষ হওয়া মিরপুর টেস্ট শ্রীলঙ্কা জিতেছে ২১৫ রানে। টেস্ট হারের হতাশার সঙ্গে বাংলাদেশের জন্য আরেক দুঃসংবাদ, মিরপুরের আরও একটি ডিমেরিট পয়েন্ট পাওয়া। গত আগস্টেও অস্ট্রেলিয়া সিরিজের পর মিরপুরের উইকেট ও আউটফিল্ডকে ‘বাজে’ বলেছিল আইসিসি। বিসিবি সভাপতি গত ডিসেম্বরে জানিয়েছিলেন, এ কারণে তাঁরা ২ ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন।
আইসিসির পরিমার্জিত উইকেট ও আউটফিল্ড নীতিমালা অনুযায়ী, পাঁচ বছরের মধ্যে ৫ ডিমেরিট পয়েন্ট হলে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে হবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামকে। মিরপুরের নামের পাশে এরই মধ্যে যোগ হয়ে গেছে ৩ ডিমেরিট পয়েন্ট। নিষেধাজ্ঞার হুমকিতেই পড়ে গেল দেশের ‘হোম অব ক্রিকেট’।

তথ্য সূত্রঃ প্রথম আলো